হেলিকপ্টার চলে সড়কে

চোখের সামনে হুস করে লাল-সাদা একটা উড়োজাহাজ রাস্তা দিয়ে এগিয়ে এসে পাশ কাটিয়ে চলে গেল। বিমানবন্দরের রানওয়েতে আছেন কি না, পরখ করে দেখার ইচ্ছাতে এদিক-সেদিক তাকাতেই নিজেকে আবিষ্কার করতে পারবেন মাদারীপুর জেলা সদরের কোনো এক সড়কে। চকিত দেখায় যেটাকে উড়োজাহাজ বলে ভাবছেন, বাস্তবে সেটি একটি অটোরিকশা। দেখতেও ঠিক উড়োজাহাজ নয়, হেলিকপ্টারের মতো। হেলিকপ্টারের আদলে অটোরিকশাটি তৈরি করেছেন মাদারীপুরের উত্তর দুধখালি শিকদারকান্দি এলাকার বাসিন্দা ওমর ফারুক শিকদার। তিনিই হেলিকপ্টার-রিকশাটির নকশাকার।

অদ্ভুত এই ইচ্ছা কেন? ওমর ফারুক শোনালেন পেছনের গল্প।

হেলিকপ্টারের মতো দেখতে অটোরিকশাটি বানিয়েছেন ওমর ফারুক শিকদার।২০১৪ সালের কথা। তখন মালয়েশিয়ায় থাকতেন তিনি। সে দেশে সৌহার্দ্যপূর্ণ সম্পর্ক তৈরি হয় ব্যক্তিগত হেলিকপ্টার আছে, এমন এক ধনকুবেরের সঙ্গে। প্রায়ই তাঁর হেলিকপ্টারে ঘোরার সুযোগও পেতেন ফারুক। মূলত সেখান থেকেই আকাশে ওড়ার স্বপ্ন। ২০১৯ সালের শুরুতে দেশে ফিরে নিজেই তৈরি করলেন বিশেষ এই গাড়ি। খরচ হয়েছে প্রায় ৩ লাখ টাকা।

সামনের অংশ হেলিকপ্টারের মতো হলেও পেছনের অংশটি এমনভাবে তৈরি, যেটি চাইলেই খুলে ফেলা যায়। আর খুলে ফেললেই সেটি নৌকার আকার ধারণ করে বলেই অটোমালিক সেটির নাম দিয়েছেন ‘ডিজিটাল নৌকা অটো বিমান’। গাড়ির বয়স এক বছর না হলেও ফারুকের ব্যতিক্রমী গাড়িতে চড়ে বিয়ে করতে গেছেন শতাধিক ব্যক্তি। ফারুক জানালেন, গাড়ি থেকে আয়রোজগারও মন্দ নয়। দৈনিক দুই থেকে আড়াই হাজার টাকা আয় হয় তাঁর। ফারুক বলেন, ‘যাদের আকাশে ওড়ার সামর্থ্য নেই কিন্তু ইচ্ছে আছে, তাঁদের কথা চিন্তা করে আমি এটি তৈরি করেছি।’

     আরো পড়ুন....

পুরাতন খবরঃ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
error: ধন্যবাদ!