অসহায় মানুষকে হয়রানির প্রতিবাদে চৌয়ারা রায়পুর গ্রামবাসির সংবাদ সম্মেলন

সদর দক্ষিণ প্রতিনিধি :
কুমিল্লা মহানগরী ২৭নং ওয়ার্ড চৌয়ারা বাজার সংলগ্ন রায়পুর গ্রামের রুস্তম আলী ও তার ছেলে মোস্তফার বিরুদ্ধে গ্রামের দিনমজুর ও খেটে খাওয়া সাধারণ মানুষকে অযথা মামলা দিয়ে হয়রানী করে জোড়পূর্বকভাবে জায়গা দখলের অভিযোগে সংবাদ সম্মেলন করেছে রায়পুর গ্রামবাসি। শনিবার সকাল ১০টায় নগরীর ২৭নং ওয়ার্ডের রায়পুর চৌমুহনীতে গ্রামের সর্বস্তরের মানুষ উপস্থিত হয়ে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের নিকট রুস্তম আলী ও তার ছেলে মোস্তফার অত্যাচার থেকে পরিত্রান পেতে এ সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। সংবাদ সম্মেলনে গ্রামবাসির পক্ষে বক্তব্য রাখেন,বিশিষ্ট সমাজ সেবক হাজী আনু মিয়া, আবুল হোসেন দুলু, আমিনুল ইসলাম, মোসলেম মিয়া,আব্দুর রশিদ। এ সময় উপস্থিত ছিলেন ফজলু মিয়া,সুরুজ মিয়া,রফিকুল ইসলাম,মোস্তফা মিয়া,কবির হোসেন,তারেক,ফরিদ মিয়া,হারিস মিয়া,আবু তাহের সহ এলাকার সর্বস্তরের জনগণ। সংবাদ সম্মেলনে বক্তারা বলেন, রুস্তম আলী ও তার ছেলে মোস্তফার অত্যাচারে অতিষ্ঠ গ্রামের অসহায় দিনমজুর থেকে শুরু করে প্রায় শ্রেণীর লোকজন। রুস্তম আলী গং রায়পুর মধ্যমপাড়ার পুকুরে নাম মাত্র কিছু অংশ কিনে প্রায় পুরো পুকুর অবৈধভারে দখল করে আছে। অংশিদাররা প্রতিবাদ করতে চাইলে মামলা দিয়ে গ্রামের সাধারণ মানুষকে প্রতিনিয়ত হয়রানির অভিযোগ তুলেছেন ভুক্তভোগিরা। সংবাদ সম্মেলনে কান্না জর্জরিত কন্ঠে রায়পুর গ্রামের আশি বছর বয়সী অসহায় সুরুজ মিয়া বলেন, আমি গ্রামের একজন অসহায় মানুষ। রুস্তম আলীর অন্যায়ের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করায় অন্য এক লোক দিয়ে আমার বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছে। সঠিক তদন্তের মাধ্যমে কর্তৃপক্ষের নিকট তাদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানাচ্ছি। এছাড়াও গ্রামের অধিকাংশ লোকের বিরুদ্ধে অভিযুক্তরা বিভিন্নভাবে হয়রানি করছে বলেও সংবাদ সম্মেলনে অভিযোগ করেছেন ভুক্কভোগিরা। এ ব্যাপারে নগরীর ২৭নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগ সভাপতি ও স্থানীয় সিটি কাউন্সিলর মোঃ আবুল হাসান বলেন, রায়পুর গ্রামের সকল মানুষ সমাজের নিয়মনীতি মেনে সমাজবদ্ধ হয়ে গ্রামে বসবাস। শুধুমাত্র রুস্তম আলী গং সমাজের কোন নিয়মনীতির তোয়াক্কা না করে বহিরাগত সন্ত্রাসী দিয়ে বিভিন্নভাবে মানুষকে একের পর এক হয়রানি করছে। একটি পরিবারের কাছে জিম্মি হয়ে আছে পুরো গ্রামের মানুষ। মামলাবাজ রুস্তম আলীর বিরুদ্ধে কেউ প্রতিবাদ করতে চাইলে থানায় মামলা ও প্রশাসনের লোকজন দিয়ে প্রতিনিয়ত তাদের হয়রানি করা হয়। রুস্তম আলী গং এর অত্যাচার থেকে রক্ষা পেতে কুমিল্লা সদর আসনের সংসদ সদস্য হাজী আ.ক.ম বাহাউদ্দিন বাহার,জেলা প্রশাসক আবুল ফজল মীর,জেলা পুলিশ সুপার সৈয়দ নুরুল ইসলাম সহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করছি।

     আরো পড়ুন....

পুরাতন খবরঃ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০
১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
১৮১৯২০২১২২২৩২৪
২৫২৬২৭২৮২৯৩০৩১
error: ধন্যবাদ!