কুমিল্লার বিচার ব্যবস্থায় ন্যায় বিচার প্রতিষ্ঠায় নজির সৃষ্টি করে গেছেন

এমদাদুল হক সোহাগ :
কুমিল্লার সিনিয়র জেলা ও দায়রা জজ মো: আলী আকবর কে বিদায় সংবর্ধনা দিয়েছে কুমিল্লা জেলা আইনজীবী সমিতি। গতকাল মঙ্গলবার বিকালে জেলা আইনজীবী সমিতির সম্মেলন কক্ষে ওই সংবর্ধনা অনুষ্ঠিত হয়। এসময় বিদায়ী সংবর্ধিত অতিথিকে ফুলেল শুভেচ্ছায় সিক্ত করেন আইনজীবীরা। সমিতির পক্ষ থেকে ফুলেল শুভেচ্ছা, মানপত্র পাঠ ও প্রদান, সম্মাননা স্মারক, উত্তরীয়, শুভেচ্ছা উপহার প্রদান করা হয়। বঙ্গবন্ধু আইনজীবী পরিষদ, ইয়াং ল-ইয়ার্স এসাসিয়েশন, আইনজীবী সহকারি সমিতি সহ আইনজীবীদের বিভিন্ন সংগঠনের নেতৃবৃন্দ এবং সাধারণ আইনজীবীরাও সংবর্ধিত বিদায়ী অতিথিকে ফুলেল শুভেচ্ছায় শ্রদ্ধা ও ভালোবাসা জানান।
বিদায়ী সিনিয়র জেলা ও দায়রা জজ মো: আলী আকবর-কে বাংলাদেশ সুপ্রীম কোর্টের রেজিস্ট্রার জেনারেল পদে প্রেষণে নিয়োগ দিয়েছে আইন বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রণালয়। গত ২৮ অক্টোবর আইন বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের আইন ও বিচার বিভাগের বিচার শাখা-৩ এর উপ সচিব (প্রশাসন-১) শেখ গোলাম মাহবুব রাষ্ট্রপতির আদেশক্রমে ওই প্রজ্ঞাপন জারি করেন। জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি আবদুল মমিন ফেরদৌসের সভাপতিত্বে বিদায় সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন, জেলা আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি সৈয়দ আবদুল্লাহ পিন্টু, জেলা পিপি জহিরুল ইসলাম সেলিম, জেলা জিপি তপন বিহারী নাগ, আবুল হাসেম খান, কাজী নাজমুস সাদাত, আ হ ম তাইপুর আলম, জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের কেন্দ্রীয় নেতা কাইমুল হক রিংকু, অতিরিক্ত পিপি মুক্তিযোদ্ধা আবুল বাশার, লাকসাম উপজেলা চেয়ারম্যান মো: ইউনুছ ভূইয়া, অতিরিক্ত পিপি গোলাম ফারুক, সাবেক পিপি মজিবুর রহমান, সদ্য সাবেক পিপি মোস্তাফিজুর রহমান লিটন, সাবেক সাধারণ সম্পাদক আতিকুল ইসলাম, অতিরিক্ত পিপি সামছুল ইসলাম লিটন, সিনিয়র আইনজীবী ফজলুর রহমান প্রমুখ। জেলা আইনজীবী সমিতির সাবেক সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ নুরুর রহমানের সঞ্চালনায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন জেলা আইনজীবী সমিতির সাধারণ সম্পাদক মো: হারুনুর রশীদ। অনুষ্ঠানে সার্বিক তত্ত্বাবধানে ছিলেন আমোদ প্রমোদ ও আপ্যায়ন সম্পাদক মোঃ সাইফুল ইসলাম।
বক্তার বলেন, সিনিয়র জেলা ও দায়রা জজ মো: আলী আকবর কুমিল্লা জজশীপে যোগ দেয়ার পর জেলা বিচার বিভাগে আমুল পরিবর্তন আনেন। তিনি দ্রুত সময়ে বিচার কাজ শেষ করে ইতিহাস সৃষ্টি করেছেন। তিনি দায়িত্ব পালনকালীন সময়ে রেকর্ড সংখ্যক মামলার শুনানী গ্রহন করেছেন, যা অতীতে আর কোন জেলা জজ করতে পারেনি। কুমিল্লার বিচার ব্যবস্থায় ন্যায় বিচার প্রতিষ্ঠায় নজির সৃষ্টি করে গেছেন। তাঁর বিচক্ষনতায় কুমিল্লার বিচার প্রার্থীরা অনেক উপকৃত হয়েছেন। তিনি অত্যন্ত সূক্ষভাবে মামলা পরিচালনা করেছেন, কোন আইনচজীবী কখনোই মামলার কোন বিষয় তাকে পাশ কাটিয়ে যেতেপারতেন না। তিনি আইনজীবীদের জন্যও একজন আদর্শ শিক্ষক ছিলেন। মামলার জট কমানোর জন্য রাত ১১টা পর্যন্তও খাস কামড়ায় বসে কাজ করেছেন। অন্যান্য বিচারকদের সময় সমস্যা থাকলেও বিদায়ী জেলা ও দায়রা জজের সময় সকল বিচারক অত্যন্ত সততার সাথে কাজ করে যাচ্ছেন বলেও প্রশংসা করেন বক্তারা। বক্তরা, জেলা ও দায়রা জজের উত্তোরত্তর সমৃদ্ধি, ব্যক্তিগত জীবন ও পারিবারিক জীবনে সুখ-শান্তি কামনা করেন।

     আরো পড়ুন....

পুরাতন খবরঃ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩১৪১৫
১৬১৭১৮১৯২০২১২২
২৩২৪২৫২৬২৭২৮২৯
৩০৩১  
error: ধন্যবাদ!