কুমিল্লায় করোনা ভাইরাসে সিএনজি শ্রমিকদের মাঝে ৫ম দফায় খাদ্য ও ঈদ সামগ্রী বিতরণ

স্টাফ রিপোর্টার ॥

কুমিল্লা জেলা সিএনজি চালিত অটোরিক্সা, অটোটেম্পু, টেক্সি কার ও ট্যাক্সি ক্যাব শ্রমিক ইউনিয়ন (রেজি:১৫৬৯) সাধারণ সম্পাদক মোঃ আলমের উদ্যোগে ৫ম দফায় করোনা ভাইরাসে সিএনজি শ্রমিকদের মাঝে খাদ্য ও ঈদ সামগ্রী বিতরণ করা হয়।
করোনা ভাইরাসের কারনে লক ডাউনে শ্রমিকরা রাস্তায় গাড়ী বের না করতে পারায় জিবিকা নিয়ে হতাশা হয়ে পড়ছে। শ্রমিকরা বিভিন্ন সময়ে সংগঠনে এসে পরিবারের দুঃখ ও কস্ট নিয়ে কান্নাঁয় ভেঙ্গে পড়ে।
এনিয়ে সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক মোঃ আলম সকল সিএনজি চালিত অটোরিক্সা ড্রাইভার শ্রমিকদেরকে ডেকে প্রথম ধাপে সচেতনতার জন্য মাস্ক ও লিপলেট বিতরণ করেন।
পরে করোনা পরিস্থিতি আরো ভয়াবহ হওয়ায় তাদের মাঝে ধাপে ধাপে ৪র্থ বারের মত চাল, ডাল, পেয়াজ, তৈল আলুসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসপত্র বিতরণ করেন।
এদিকে রমজান শেষে ঈদকে সামনে রেখে গতকাল (২০ মে) বুধবার সকালে সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক মোঃ আলমের সার্বিক সহযোগিতায় শ্রমিকদের মাঝে ঈদ সামগ্রী সেমাই, চিনি ও চিকন চাল বিতরণ করেন।
বিতরণ কালে তিনি শ্রমিকদের কে বলেন, আপনারা ঘরে থাকুন, নিজেকে ও পরিবারকে সেভ রাখুন, দেশের পরিস্থিতি পরিবর্তন হলে রুজি রোজগার করা যাবে। তবে দেশের স্বার্থে ও নিজের স্বার্থে সকলে আইন মেনে চলুন। আমরা আপনাদের পাশে আছি, সুখ-দুঃখ নিয়ে সকলে মিলে মিশে চলতে হবে। সংগঠন সব সময়ে আপনাদের পাশে ছিল, আছে ও থাকবে।
এছাড়া আপনাদের কোন সমস্যা থাকলে স্ব স্ব শাখার সভাপতি, যেমন; কালির বাজার শাখা, কোটবাড়ী শাখা, পদুয়ার বাজার বিশ্বরোড শাখা, বাগমারা শাখা ও লালমাই শাখার সাথে যোগাযোগ করার অনুরোধ করছি।
এই সংগঠনটি দির্ঘদিন থেকে শ্রমিকদের পাশে থেকে মৃত্যু ফান্ড, পেনশন, চিকিৎসা ভাতা ও সামাজিক বিভিন্ন কর্মকান্ডে সহযোগিতা করে আসছে। কুমিল্লার বিভিন্ন স্থানে শ্রমিকরা অবহেলিত হলেও রেজি: ১৫৬৯ এর অন্তভূক্ত শ্রমিকরা কখনো অবহেলিত হয়নি। তাদের পাশে কোটবাড়ী, কালির বাজার, কান্দিরপাড়, টমছমব্রিজ, পদুয়ার বাজার বিশ্বরোডসহ বিভিন্ন শাখায় তাদের কার্যক্রম অব্যহত রেখেছেন। যাহার উদাহরন হিসেবে গত দুই মাসে করোনা ভাইরাসের লক ডাউনে থাকা শ্রমিকদের পাশে ৫ম বারের মত সাহায্য সহযোগিতা দিয়ে দৃষ্টান্ত রেখেছে।

     আরো পড়ুন....

পুরাতন খবরঃ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩১৪১৫
১৬১৭১৮১৯২০২১২২
২৩২৪২৫২৬২৭২৮২৯
৩০৩১  
error: ধন্যবাদ!