বুড়িচংয়ে শিশু সন্তানকে হত্যা করে প্রবাসীর স্ত্রীর আত্মহত্যা

মো. জাকির হোসেন :

কুমিল্লার বুড়িচংয়ে প্রবাসীর স্ত্রী ও ৪ বছরের কন্যা শিশুর মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার সকালে উপজেলার গোপীনাথপুর গ্রামের নিজ ঘর থেকে মরদেহ দুটি উদ্ধার করে বুড়িচং থানা পুলিশ।

স্থানীয় ইউপি সদস্য আবদুল হক জানান, গোপীনাথপুর গ্রামের মাঝি বাড়ীর শাহ জাহানের ছেলে সিঙ্গাপুর প্রবাসী আবুল কালামের সাথে ৫ বছর পূর্বে একই উপজেলার বারেশ^র গ্রামের মোঃ মোস্তাফার কন্যা জান্নাত আক্তারের বিয়ে হয়। বিয়ের এক বছর পর তাদের একটি কণ্যা সন্তানের জন্ম নেয়। সম্প্রতি গত ৫ মাস পূর্বে আবুল কালাম ছুটি শেষ করে সিঙ্গাপুর যায়।

পরিবারের সদস্যদের বরাত দিয়ে ইউপি সদস্য আবদুল হক আরো বলেন, বুধবার রাতে পরিবারের সদস্যদের সাথে খাবার খেয়ে জান্নাত আক্তার শিশু সন্তানকে নিয়ে নিজের রুমে ঘুমাতে যায়। প্রতিদিনের মতো সকালে ঘুম থেকে না উঠায় শ্বাশুড়ি ঘরের দরজায় ডাকতে থাকে। দীর্ঘক্ষন কোন সারাশব্দ না পেয়ে বাড়ীর লোকজনকে ডেকে আনে। স্থানীয়া ঘরের দরজা ভেঙ্গে ভিতরে প্রবেশ করে মরদেহ দুটি দেখতে পেয়ে বুড়িচং থানায় খবর দেয়।

বুড়িচং থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (তদন্ত) কবির হোসেন জানান, স্থানীয়দের মাধ্যমে খবর পেয়ে সকাল ১০ টায় পুলিশ ঘটনাস্থলে আসে। পুলিশ আসার পর দেখতে পায় ঘরের বিছানায় একটি শিশুর মরদেহ পরে আছে। পাশেই ফ্যানের সাথে ওড়না নিয়ে ঝুলন্ত ছিলো শিশুটির মা।

তিনি আরো বলেন, শিশুটির গলায় তার প্যাচানো ছিলো। মরদেহ দুটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব আবু তাহের বলেন, খবর পেয়ে আমি ঘটনাস্থলে যাই। স্থানীয়দের কাছ থেকে যানতে পারি স্বামীর সাথে মোবাইল ফোনে ঝগড়া করে শিশু সন্তানকে হত্যার পর মা আত্মহত্যা করেছে।

বুড়িচং থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইসমাইল হোসেন বলেন, দুটি মরদেহ উদ্ধার করে মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় বুড়িচং থানায় একটি হত্যা ও একটি অপমৃত্যু মামলা দায়ের হবে। ময়নাতদন্তের রিপোর্টে মৃত্যুর সঠিক কারণ নির্ণয় করা যাবে।

     আরো পড়ুন....

পুরাতন খবরঃ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২
১৩১৪১৫১৬১৭১৮১৯
২০২১২২২৩২৪২৫২৬
২৭২৮২৯৩০৩১  
error: ধন্যবাদ!