প্রযুক্তি ব্যবহারে সদর দক্ষিণে যুবক হত্যার রহস্য উদঘাটন করেছে এস.আই খাদেমুল বাহার

মাজহারুল ইসলাম বাপ্পি :
কুমিল্লা সদর দক্ষিণের মধ্যম বিজয়পুর এলাকার অজ্ঞাত যুবকের হত্যার রহস্য উদঘাটন করেছে কুমিল্লা সদর দক্ষিণ মডেল থানা পুলিশ। আধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে মামলা তদন্ত কর্মকর্তা সদর দক্ষিণ মডেল থানার এস.আই খাদেমুল বাহার দেড় মাসের মধ্যে যুবককে হত্যার রহস্য উদঘাটন করতে সক্ষম হয়েছেন।
মামলার তদন্ত কর্মকর্তা খাদেমুল বাহার জানান, কুমিল্লা জেলার সদর দক্ষিণ উপজেলার বিজয়পুর ইউনিয়নের মধ্যম বিজয়পুর টুইন্না পুকুর পাড় থেকে গত ১৬ সেপ্টেম্বর অজ্ঞাত এক যুবকের লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। একদিন পর লাশটি বিজয়পুর ইউনিয়নের কাশিপুর গ্রামের কাজল চন্দ্র দাস (২৪) বলে নিশ্চিত হয় পুলিশ। এ ঘটনায় সদর দক্ষিণ মডেল থানায় অজ্ঞাত আসামি করে একটি মামলাও দায়ের করা হয়। প্রথমত এস.আই আনোয়ারকে মামলার তদন্ত কর্মকর্তার দায়িত্ব দেয়া হলেও বদলি জনিত কারণে গত ২২ অক্টোবর মামলার তদন্ত কর্মকর্তার দায়িত্ব গ্রহন করেন এস.আই খাদেমুল বাহার। উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সার্বিক সহযোগিতায় ও দিক নির্দেশনায় মামলার তদন্ত কর্মকর্তা বিভিন্ন প্রযুক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে ৮ ডিসেম্বর নিহত কাজল চন্দ্র দাসের পাশের বাড়ির সুকুমার চন্দ্র দাসের ছেলে হৃদয় চন্দ্র দাস (১৭) নামের এক যুবককে গ্রেফতার করে। গ্রেফতারকৃত হৃদয় চন্দ্র দাস ৯ ডিসেম্বর সোমবার কুমিল্লা বিজ্ঞ সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট এরফানুল হক চৌধুরীর আদালতে ১৬৪ ধারায় কাজল চন্দ্র দাসকে লাঠি দিয়ে মাথায় আঘাত করে হত্যা করেছে বলে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে।
স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দিতে হৃদয় চন্দ্র দাস বলে, গত ১৫ই সেপ্টেম্বর রাতে কাজল চন্দ্র দাস তাকে মধ্যম বিজয়পুর টুইন্না পুকুর পাড়ে ডেকে নিয়ে জোড়পূর্বক বলৎকার করার চেষ্টা করলে আত্নরক্ষার্থে হৃদয় চন্দ্র দাস লাঠি দিয়ে মাথায় আঘাত করে পালিয়ে আসে। পরবর্তীতে লাশ গ্রহন ও দাহ অনুষ্ঠানেও হৃদয় চন্দ্র দাস প্রত্যক্ষ উপস্থিতি ছিল।

     আরো পড়ুন....

পুরাতন খবরঃ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
৩১  
error: ধন্যবাদ!