লকডাউনে কর্মহীন কুমিল্লার ৩০ হাজার পরিবহন শ্রমিক

নিজস্ব প্রতিবেদক ।।

কুমিল্লায় প্রায় ৩০ হাজার পরিবহন শ্রমিক টানা লকডাউনে আয়শূন্য হয়ে পড়েছেন। খেয়ে না খেয়ে পরিবার নিয়ে তারা মানবেতর জীবনযাপন করছেন।

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে সর্বাত্মক লকডাউনে গণপরিবহন চলাচল বন্ধ রয়েছে। আন্তজেলা ও উপজেলা যোগাযোগের মাধ্যম বাসগুলো বন্ধ থাকায় গত ২৩ দিনেরও বেশি সময় বেকার হয়ে আছেন হাজার হাজার শ্রমিক।

পরিবহন শ্রমিকদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, জমানো টাকা যা ছিল তা দিয়ে লকডাউনের প্রথম দিকেই শেষ হয়ে গেছে। এখন ধার-দেনা করে কোনো রকম দিন পার করতে হচ্ছে তাদের। এরই মধ্যে অনেকে এই পেশা ছেড়ে দিয়েছেন। রিকশা, অটোরিকশা কিংবা সিএনজি চালাচ্ছেন অনেকে। কেউ আবার দিনমজুর হিসেবে বেছে নিয়েছেন ঘরবাড়ি-কলকারখানার কাজ। কেউ আবার হতাশাগ্রস্ত হয়ে মাদকসক্তও হয়ে পড়ছেন।

শনিবার (১ মে) সকালে কুমিল্লা নগরীর শাসনগাছা, চকবাজার ও জাঙ্গালিয়া বাস টার্মিনাল ঘুরে পরিবহন শ্রমিকদের সঙ্গে কথা বলে এসব তথ্য জানা গেছে।

জাঙ্গালিয়া বাস টার্মিনালের বেশ কয়েকজন বাসের স্টাফ জানান, কাজকর্ম নেই, তারপরও বাসগুলোর মায়ায় টার্মিনালে ঘুরে বেড়াচ্ছেন তারা। লকডাউন শেষ হওয়ার আশায় দিন গুনছেন এসব শ্রমিক।

তিশা পরিবহনের ফারুক হোসেন বলেন, ‘আমরা দিন আনি দিন খাই। জমানো টাকা বলতে কিছু নেই। লকডাউন আরও বাড়লে কী খাব, কী করব, তা ভেবে পাচ্ছি না।’

ইতোমধ্যে কুমিল্লা জেলার তিনটি শ্রমিক ইউনিয়নের পক্ষ থেকে জেলা প্রশাসকের কাছে প্রণোদনার জন্য আবেদন করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন জেলা বাস মালিক সমিতির কার্যকরী সভাপতি মো. তাজুল ইসলাম।

তিনি জানান, বেশ কিছু পরিবহন মালিকরা তাদের শ্রমিকদের অর্থনৈতিক সহযোগিতার যথাসাধ্য চেষ্টা করে যাচ্ছেন। ইতোমধ্যে জেলা প্রশাসক বরাবর কুমিল্লা জেলার শ্রমিকদের তালিকা দেয়া আছে।

বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন মালিক সমিতির সহ-সভাপতি অধ্যাপক কবির আহমেদ বলেন, ‘আমার জানামতে, কুমিল্লার পরিবহন মালিকরা তাদের শ্রমিকদের লকডাউনের স্থবির সময়ে অর্থনৈতিক সহযোগিতা করে আসছেন। তবে অনেকে আছেন যারা ছোট পরিবহন ব্যবসায়ী। ধারদেনা করে বাস চালান। তারা কীভাবে শ্রমিকদের চালাচ্ছেন তা আমার জানা নেই। আশা করছি, সরকার পরিবহন শ্রমিকদের কথা চিন্তা করে একটি ভালো সিদ্ধান্ত নেবে।’

কুমিল্লা জেলা প্রশাসক (ডিসি) মোহাম্মদ কামরুল হাসান বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রীর অর্থনৈতিক সহযোগিতা পরিবহন শ্রমিকরা এমনিতেই পাবেন। তারপরও কারো যদি কোনো সহযোগিতা প্রয়োজন হয় তারা যেন শ্রমিক সংগঠনের মাধ্যমে জেলা প্রশাসনকে জানায়। তাহলে আমরা পরিবহন শ্রমিকদের সর্বোচ্চ সহযোগিতা করব।’

     আরো পড়ুন....

পুরাতন খবরঃ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০৩১  
error: ধন্যবাদ!